কুষ্টিয়াতে সব মাধ্যমিক স্কুলগুলোতে নেওয়া হচ্ছে না অনলাইন ক্লাস

হুমকির মুখে শিক্ষা জিবন

অথর
জে এন এস নিউজ ডেক্স :   কুষ্টিয়া
প্রকাশিত :১৬ জুন ২০২১, ১:০৪ অপরাহ্ণ | পঠিত : 53 বার
হুমকির মুখে শিক্ষা জিবন

রুহুল আমিন।। করোনার ভয়ঙ্কর থাবায় ক্ষতিগ্রস্থ মানবজাতি বিশ্বের প্রতিটি দেশ করোনা মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে, বাংলাদেশ এর বাইরে নয়। করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আমাদের শিক্ষা খাত, প্রায় ১৫ মাসের বেশি দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ আছে, এতে দেশের শিক্ষা কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে।ফলে শিক্ষার্থীরা ভুগছে নানা সমস্যায়,শিক্ষা জিবন পড়ছে হুমকির মুখে, লেখাপড়ার প্রতি অনিহা,বাল্যবিবাহ, আর্থিক অনটনের শিকার হয়ে কর্মজীবনে প্রবেশ সহ মানষিক ভাবে ভেঙে পড়ছে সকল শিক্ষার্থীরা।তাই অতি দ্রুত যে ভাবেই হোক শিক্ষার্থীদের পাঠ্যক্রমের সাথে যুক্ত করার দাবি অভিভাবকদের। করোনাকালীন সময়ে দেশের এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা বেশ ফুরফুরে মেজাজে থাকলেও বেহাল অবস্থায় শিক্ষার্থীরা, বেহাল অবস্থায় দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম। করোনাকালীন সময়েও সরকার শিক্ষকদের বৈশাখী ভাতা, ঈদ বোনাস সহ বেতন ঠিকমতো পরিশোধ করলেও কর্মহীন অবস্থায় আছে কুষ্টিয়ার অধিকাংশ শিক্ষক, সরকার করোনা কালীন সময়ে শিক্ষা ব্যবস্থাকে সচল রাখতে, গত বছরের মে মাস থেকে অনলাইন পদ্ধতিতে ক্লাস নেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করে, এ বিষয়ে প্রতি মাসের প্রথম তিন তারিখে স্ব-স্ব উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে কুষ্টিয়া জেলার অধিকাংশ বিদ্যালয়গুলো অনলাইন পাঠ্যক্রমে অংশগ্রহণ করে না। এক্ষেত্রে কিছু প্রতিবন্ধকতা আছে যেমন ব্যয়বহুল ও ধীর গতির ইন্টারনেট, গ্রামাঞ্চলে বিদ্যুৎবিভ্রাট, স্মার্ট ডিভাইস সংকট, প্রযুক্তিগত অদক্ষতা ইত্যাদি সমস্যা আমাদের আছে, কিন্তু বড় সমস্যা আমাদের শিক্ষকদের। উপরোক্ত সমস্যা সকলের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়,যাদের ঐ সকল সমস্যা নাই তারাও ঠিকমতো অনলাইন সেবা পাচ্ছে না শুধু শিক্ষকদের গাফিলতির কারণে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বপ্ন দেখেছেন ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার, সেই লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। এ ক্ষেত্রে তথ্য প্রযুক্তির অনেক এগিয়েছে, তাইতো আজ ভাবতে পারছি ঘরে বসে স্কুলের ক্লাস করার কথা, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।
দেশের মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অনলাইন ক্লাস মনিটরিংয়ের নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর। কোন কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনলাইন ক্লাস পরিচালনা করছে এবং কারা করছে না, তার তথ্য সংগ্রহের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। করোনাকালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকাকালে প্রান্তিক পর্যায় পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম নিশ্চিত করা এবং অনলাইন ক্লাস ইন্টারেক্টিভ করতে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় জানা গেছে, প্রান্তিক পর্যায় পর্যন্ত দেশের মাধ্যমিক স্তরের সকল শিক্ষার্থীকে কার্যকর সংসদ টিভি এবং অনলাইন ক্লাসে যুক্ত করতে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়ছে। অনলাইন ক্লাস এবং সংসদ টিভিতে পরিচালিত ক্লাস পরিচালনা এবং শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে মনিটরিং করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
গত ৫ মে মাসে অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং অনলাইন ক্লাসের সমন্বয় করে রুটিন তৈরিসহ ৫ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
অনলাইন ক্লাস মনিটরিংয়ে ৫ দফা নির্দেশনা:
১) যে সকল বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অনলাইন ক্লাস নিচ্ছে না বা নিতে পারছে না, তার পরিসংখ্যান সংগ্রহ করতে হবে এবং জরুরিভিত্তিতে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরকে জানাতে হবে।
২) জেলা পর্যায়ে অনুষ্ঠিত অনলাইন ক্লাসে উপজেলা পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের যুক্ত করার ব্যবস্থা নিতে হবে।
৩) স্কুল কর্তৃপক্ষ পরিচালিত অনলাইন ক্লাসগুলো ‘জুম’ বা ‘গুগল মিট’ বা ‘মাইক্রো সফট টিম’ বা অন্য যেকোনও মাধ্যমে মিথস্ক্রিয় করার ব্যবস্থা নিতে হবে।
৪) সংসদ টিভি, স্কুল কর্তৃপক্ষ পরিচালিত অনলাইন ক্লাস, জেলা ও উপজেলা অনলাইন ক্লাসগুলো অগ্রাধিকার দিয়ে ক্লাস রুটিন প্রস্তুত করতে হবে।
৫) কার্যক্রমগুলো যথাযথভাবে করা হচ্ছে কিনা, তার জন্য কার্যক্রর মনিটরিং ব্যবস্থা নিতে হবে।
এ বিষয়ে কুষ্টিয়া জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ জায়েদুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, কুষ্টিয়াতে অনলাইন ক্লাস নেওয়া হচ্ছে, কোনো স্কুলের ব্যাপারে অভিযোগ পেলে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে  সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × four =