বিশ্বকাপ ফুটবল বাছাই পর্ব রোনালদোর সবচেয়ে বেশী গোলের বিশ্বরেকর্ড : জিতেছে পর্তুগাল

অথর
জে এন এস নিউজ ডেক্স :   কুষ্টিয়া
প্রকাশিত :২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৬:৩৯ অপরাহ্ণ | পঠিত : 72 বার
বিশ্বকাপ ফুটবল বাছাই পর্ব  রোনালদোর সবচেয়ে বেশী গোলের বিশ্বরেকর্ড : জিতেছে পর্তুগাল

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো বুধবার রাতে বিশ্ব কাপ ফুটবলের বাছাই পর্বের ম্যাচে জোড়া গোল করে আন্তর্জাতিক ম্যাচে সবচেয়ে বেশী গোলের রেকর্ড নিজের করে নেয়ার পাশাপাশি নিজ দেশ পর্তুগালকে এনে দিয়েছেন দারুন এক জয়। বুধবার পর্তুগাল পিছিয়ে পড়েও রোনালদোর অসামান্য নৈপুন্যের সাহায্যে ২-১ পরাজিত করে আয়ারল্যান্ডকে। একই দিন অপর এক ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স ১-১ গোলে ড্র করেছে বসনিয়া এবং হার্জেগোভিনার সাথে।

এক দিন আগেই ইউভেন্টাস থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দিয়ে সংবাদ শিরোনামে এসেছিলেন রোনালদো। পরের দিনই জাতীয় দলের হয়ে দুরন্ত নৈপুন্য প্রদর্শন করেন ৩৬ বছর বয়সী এ তারকা। যদিও ম্যাচের প্রথমার্ধে তিনি পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছিলেন। তার নেয়া পেনাল্টি বাচিয়ে দেন আয়ারল্যান্ডের গোলরক্ষক গ্যাভিন বাজুনু। এর পর জন এগান গোল করলে আয়ারল্যান্ড স্বপ্ন দেখতে থাকে অবিশ^াস্য এক জয়ের। কিন্তু রোনালদো ৮৯ মিনিটে গোল করে সমতা ফেরানোর সাথে সাথে আন্তর্জাতিক ফুটবলে সবচেয়ে বেশী গোলের রেকর্ডটি নিজের করে নেন। এর আগে ইরানের আলি দাইয়ের সাথে যৌথভাবে রেকর্ডটি দখলে রেখেছিলেন তিনি। এ গোলের আগ পর্যন্ত দাই ও রোনালদোর গোল সংখ্যা ছিল ১০৯টি। ইনজুরি টাইমে হোয়াও ম্যারিওর ক্রস অনেকটা লাফিয়ে উঠে হেড দিয়ে জয়সূচক গোলটি করেন রোনালদো। একই সাথে নিজের গোল সংখ্যা বাড়িয়ে নিয়ে যান ১১০এ।

রোনালদো বলেন, ‘এ রেকর্ডটি এখন আমার এবং এটা একেবারেই অন্য উচ্চতার। আমি খুবই খুশি এবং আমার ক্যারিয়ারের বিশেষ অর্জন।’ এ ম্যাচ খেলার মাধ্যমে ইউরোপের কোন দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশী ম্যাচ খেলার রেকর্ড স্পর্শ করেন রোনালদো। স্পেনের সার্জিও রামোস এবং রোনালদো নিজ নিজ দেশের পক্ষে ১৮০টি করে ম্যাচ খেলে রেকর্ডটি নিজেদের করে নিয়েছেন।

রোনালদো আরও বলেন, ‘আমার ভাল করার প্রেরণা আসে দৃঢ় ইচ্ছা শক্তি থেকে। আমি ফুটবল খেলা অব্যাহত রাখতে চাই। এছাড়া ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ফিরতে পেরে আমার খুবই ভাল লাগছে। মনে হয় যেন আমি নিজ বাড়ীতেই ফিরে এসেছি। গোল করা, দলকে জেতানো এবং শিরোপা জেতাটাই আমি সবচেয়ে বেশী পছন্দ করি।’

এ ম্যাচ জেতায় পর্তুগাল আছে তাদের গ্রুপের শীর্ষে। চার ম্যাচ থেকে পর্তুগাল সংগ্রহ করেছে ১০ পয়েন্ট। এক ম্যাচ কম খেলে সার্বিয়া তিন পয়েন্ট কম নিয়ে আছে দ্বিতীয় স্থানে। গ্রুপের শীর্ষস্থানীয় দল সরাসরি আগামী বছর কাতারে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্ব কাপে খেলার সুযোগ পাবে। দ্বিতীয় স্থান লাভকারী দলকে খেলতে হবে প্লে অফ।

ইউরো ২০২০ এর শেষ ষোলতে সুইজারল্যান্ডের কাছে পরাজিত হওয়ার পর ফ্রান্স বুধবার খেলতে নামে প্রথম ম্যাচ। কিন্তু তারা এডিন জেকোর করা গোলে তাদেরকে পেছনে ফেলে দেয় বসনিয়া এবং হার্জেগোভিনা। অ্যান্টনি গ্রিজম্যান সমতা ফেরান। ফ্রান্সের কর্নার কিকের বল বল প্রতিহত করার জন্য জেকো হেড করলে সেটি গ্রিজম্যানে গায়ে লেগে গোললাইন অতিক্রম করে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে ফ্রান্সের জুলস কুন্ডে মারাত্মক ট্যাকল করার দায়ে লাল কার্ড দেখেন। ফলে প্রায় অর্ধেক ম্যাচ একজন কম নিয়ে খেলতে হয় ফ্রান্সকে। ফ্রান্স ডি গ্রুপে শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে। তারা দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইউক্রেনের চেয়ে চার পয়েন্টে এগিয়ে আছে। ইউক্রেন এদিন ২-২ গোলে ড্র করেছে কাজাখস্তানের সাথে। তাদের চেয়ে ছয় পয়েন্ট কম নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে ফিনল্যান্ড। অবশ্য তারা দুই ম্যাচ কম খেলেছে। ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ার দেশ্যম বলেন, ‘বাছাই পর্বের ম্যাচগুলো বেশ কঠিন। ম্যাচে যা ঘটেছে তার পরেও ড্র করতে পেরেই আমরা সন্তুষ্ট। আমরা আরও এক পয়েন্ট বাড়াতে পেরেছি। পয়েন্ট ছাড়াও ম্যাচ থেকে পেয়েছি অনেক কিছু। শনিবারই আমাদের পরের ম্যাচ। ফলে দ্রুত সে ম্যাচের জন্য নিজেদের গড়ে তুলতে হবে।’

সূত্র: সংবাদ

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে  সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − two =